Page

Follow

বিবর্তনবাদ: কল্পবিজ্ঞান যখন বিজ্ঞান || এক প্রজাতি রূপান্তরিত হয়ে অন্য প্রজাতি : সত্যি, না গল্প ?||Page-64

  এক প্রজাতি রূপান্তরিত হয়ে অন্য প্রজাতি : সত্যি, না গল্প ?



 "Not one change of species into another

is on record.... we cannot prove that a

My Life and Letters, single species has changed into another.চার্লস ডারউইন, " vol-1 page 210


উপরের উক্তি ডারউইনের, মনে হতে পারে অবিশ্বাস্য। কিন্তু সত্যি। জীবনের শেষ প্রান্তে উপনীত হয়ে তাঁর একটি চিঠিতে স্বীকারােক্তি করছেন ডারউইন। বাংলা তর্জমা ঃ “প্রজাতিসমূহের একটি থেকে অপরটিতে রূপান্তরের একটি ঘটনাও কোনাে রেকর্ডে নেই। ... একটি প্রজাতি যে অপর একটি প্রজাতিতে পরিণত হয়েছে আমরা তা প্রমাণ করতে পারি না।”তবুও, বিবর্তনবাদীরা বলে চলেন প্রজাতির ইতিকথা। প্রমাণহীন বিশ্বাসের গল্প। 


অভিব্যক্তি মতবাদ বা বিবর্তনবাদ অনুসারে ঃ -


১. পৃথিবীতে প্রথম জীবের আর্বিভাব ঘটে অজৈব জড় পদার্থের রাসায়নিক

বিক্রিয়ায়। 


২. জীবন একটা অ্যাক্সিডেন্ট :: কোন উদ্দেশ্য নেই, কোন স্রষ্টাও নেই।


৩.প্রথম কোষ থেকে জন্ম হয়েছে অনেক কোষের, এরপর প্রকৃতির সংগে

সংগ্রাম ও অভিযােজন করতে করতে উদ্ভব হয়েছে জটিল প্রজাতির। 


৪. এইভাবে এক প্রজাতি রূপান্তরিত হয়ে তৈরী হয়েছে অন্যান্য উন্নত

প্রজাতির। 


৫. সব প্রজাতির জীবদেহের সৃষ্টি হয়েছে ঘটনাচক্রে আপনা থেকে—

এর পিছনে কোন বুদ্ধিমত্তা নেই, পরিকল্পনা নেই। 


৬.জীবন যেহেতু জড়ের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ার পরিণতি, তাই ফিজিক্স আর

কেমিস্ট্রির নিয়মের দ্বারা জীবনের সব দিকগুলির ব্যখ্যা দেওয়া যায়। 


৭. বিবর্তন অব্যাহত প্রক্রিয়া, এখনও চলছে; তাই সব প্রজাতির রূপান্তর

ঘটছে অনবরত। আগামী কয়েক লক্ষ বা কয়েক কোটি বছর পরে ।

বদলে যাবে জীবজগতের সামগ্রিক চেহারা।।



 ১০ টি প্রত্যাশা।

ডারউইনবাদ, ল্যামার্কবাদ, মডার্ন সিন্থেটিকথিওরী, পাংচুয়েটেড ইকুইলিব্রিয়াম থিওরি  এবং নিও ডারউইনিজম বা নয়া ডারউইনবাদ অনুযায়ী বিবর্তনবাদীদের তত্ত্ব যদি সত্য হয়, তাহলে জেব বৈচিত্র্যের মধ্যে — সর্বত্রই দেখা যাবে। 


১, আপরিকল্পনা, বিশৃঙ্খলা;

২.অর্থবিকশিত জীব:বহু প্রজাতি দেখা যাবে, যাদের দেহ অর্ধ-বিকশিত; বিকাশমান, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অপূর্ণ  ।


৩.ইকো-সিস্টেম :: সুসংবদ্ধ (Well-organized) বস্তুতন্ত্র বলে কিছু থাকবে না— কেননা-জীব বৈচিত্র্য আপনা থেকে উদ্ভূত—কেবল বাঁচার লড়াইয়ের তাগিদ থেকে প্রাকৃতিক নির্বাচনের ধারায় উদ্ভব ঘটেছে তাদের। 


৪.অন্তর্বর্তী যােগসূত্র ঃ এক প্রজাতি থেকে অন্য-প্রজাতিতে বিবর্তিত হবার অন্তর্বর্তী যােগসূত্র (Intermediary links) মিলবে অজস্র সংখ্যায়। যেমন, ভালুক থেকে তিমি হবার লক্ষ লক্ষ বছরের অন্তর্বর্তী পর্যায়ে অজস্র জীবাশ্ম-নমুনা মিলবে।

প্রত্যেক উন্নত প্রজাতির ক্ষেত্রেই একথা প্রযােজ্য। 


৫. অনুন্নত জীব, অনুন্নত প্রযুক্তিঃ:   নিম্নতর জীব-দেহে থাকবে অপূর্ণতার ছাপ; তাদের দেহ হবে স্বল্প-বিকশিত, অনুন্নত।।


 ৬. কোন অতিপ্রাকৃত বুদ্ধিমত্তা নয় : জীবদেহগুলিতে এমন প্রযুক্তি বা টেকনােলজির প্রয়ােগ থাকবে না, যা জৈবিক বুদ্ধিমত্তাকে অতিক্রম করে যায়। কেবল ন্যাচারাল সিলেকশান প্রকৃতির সঙ্গে খাপ খাওয়াতে গিয়ে যতটা যেমন উন্নত হওয়া সম্ভব,জীব দেহগুলি হবে তেমনই। 


৭. সৌন্দর্য ও নান্দনিকতার অনুপস্থিতি ফিজিক্স-কেমিস্ট্রির পরিধির বাইরে যেহেতু

কোন অতিপ্রাকৃত কিছু নেই, সেজন্য-জীব দেহগুলি কেবল উপযােগিতার ভিত্তিতে ফিজিক্স কেমিস্ট্রির নিয়মে তৈরী হবে, তার মধ্যে থাকবে না শিল্প

সৌন্দর্যবােধ—নান্দনিকতার স্পর্শ। 


৮. ভবিষৎ জৈব বিবর্তনের রেখাচিত্র  (Prediction of Future Evolution- ary

Model) : অতীত বিবর্তনে এত জীব। অব্যাহত বিবর্তন প্রক্রিয়াও । বিবর্তনের ধারায় বর্তমান প্রজাতিগুলিও সব সময় উন্নত হতে থাকবে;সেজন্য তৈরী করা সম্ভব প্রজাতিগুলি কয়েক লক্ষ বা কয়েক কোটি বছর পরে কেমন হবে, তার ।

ভবিষ্যৎ বিবর্তনীয় মডেল।


 ৯. উন্নত জীব, বেশি আয়ু ঃ বেঁচে থাকার চরম তাগিদেই জীব-প্রজাতির যদি বিবর্তন হয়, তাহলে জীব যত উন্নত হবে, আনুপাতিক হারে তাদের আয়ু হবে অন্যদের চেয়ে বেশি।


 ১০. উচ্চতর ভাব (emotions), যেমন আনন্দের কোন অভিব্যক্তি থাকবেনা সৃষ্টিতে ? জড়, জীব, জগৎ, সবই উদ্দেশ্যহীন নিয়ন্ত্রণহীন ভৌতিক নিয়মের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়ার ফলশ্রুতি হলে সৃষ্টি বৈচিত্র্যের মধ্যে ঘটবেনা উচ্চতর কোন অভিব্যক্তি – যেমন আনন্দ, শৈল্পিকতা।।



Click Here >>>Subscribe






Comments

y3

yX Media - Monetize your website traffic with us Monetize your website traffic with yX Media Monetize your website traffic with yX Media

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

sharethis-inline