Page

Follow

জীবনের উদ্ধব কি আকস্মিক রাসায়নিক ঘটনা ? অ্যামাইনাে অ্যাসিড থেকে প্রাণবন্ত কোষ : প্রাণ এল কোথা থেকে? PAGE-50

  অ্যামাইনাে অ্যাসিড থেকে প্রাণবন্ত কোষ : প্রাণ এল কোথা থেকে? 

আদিম কোষ ঃ কিভাবে গঠিত হল ‘অ্যাকসিডেন্টালি’? 

PAGE-50



"The only life we know for certain is cellular"

—হেরল্ড মরােউজ, বিবর্তনবাদী "

A cell is so complex that even the high level of technology attained today cannot produce one. No effort to create an artificial cell has ever met with success. Indeed, all attempts to do so have been abandoned."

-Harun Yahua, Darwinsm Defeated 

“একটি কোষ এতই জটিল যে এমনকি উচ্চস্তরের প্রযুক্তির দ্বারাও -মানুষ আজ যা অর্জন করেছে - একটি মাত্র কোষও তৈরী করা যায় না। কৃত্রিম কোষ তৈরীর কোন প্রচেষ্টাই এপর্যন্ত সাফল্যের মুখ দেখেনি। বস্তুত, কোষ তৈরীর সমস্ত চেষ্টাই বিজ্ঞানীরা এখন ত্যাগ করেছেন।”


জীবজগতে কোষের বাইরে জীবনের অস্তিত্ব নেই। বিবর্তনবাদীদের ধারণা অনুসারে পৃথিবীতে প্রথম জীবনের স্ফুলিঙ্গ দেখা দিয়েছিল রাসায়নিক পদার্থের আপনা থেকে বিক্রিয়া ঘটতে ঘটতে হঠাৎ (By chance) একটি সরল আদিম ‘প্রােটোসেল’-এ, তারপর সরল ইউক্যারিওটিক কোষে। বিজ্ঞানীরা এজন্য অ্যামিবা, প্রােটোজোয়া বা ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র সরলতম এককোষী জীব ব্যাকটেরিয়াকেই সমস্ত জীবজগতের আদি পূর্বপুরুষ বলে নির্ধারণ করেছেন। আমরা, অতএব, এদেরই বংশধর। 


কিন্তু এইসব সরলকোষী ব্যাকটেরিয়া কি সত্যিই সরল’?


ডারউইন যখন বিবর্তনবাদ (Evolution) কথাটি প্রথমে তাঁর ‘দি ডিসেন্ট অব ম্যান ... দিঅরিজিন অব স্পিসিস’বইয়ের দ্বিতীয় পৃষ্ঠায় ব্যবহার করেন, সেটি প্রায় দুই শতাব্দী আগে। (১৮৫৯)। তখন অণুবীক্ষণ যন্ত্র খুব বেশি শক্তিশালী ছিল না;কোষকে তখন প্রােটোপ্লাজমের একটি থলিতে (blobs) ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দু-একটি বিন্দু রূপে দেখা যেত, যেমন নিউক্লিয়াস, কিন্তু তার বেশি কিছু নয়। তখন ডারউইন ও তার অনুগামীরা সহজেই ভাবতে পেরেছিলেন যে ‘random chance" এর দ্বারা সহজেই উপযুক্ত পরিবেশে প্রাণহীন জড় উপাদান হতে সৃষ্টি হতে পারে প্রাণের । ১৯২০ সাল থেকে কোষের গঠন সম্বন্ধে জ্ঞান সঞ্চয় হচ্ছিল, সেই সংগে বিকাশলাভ করছিল ডারউইনীয় বিবর্তনবাদ। ওপারিন নামে একজন সােভিয়েত বিজ্ঞানী অ্যামাইনাে অ্যাসিড থেকে প্রাণবন্ত কোষ : প্রাণ এল কোথা থেকে? 


আদিম কোষ ঃ কিভাবে গঠিত হল ‘অ্যাকসিডেন্টালি’? 


"The only life we know for certain is cellular"

—হেরল্ড মরােউজ, বিবর্তনবাদী "

A cell is so complex that even the high level of technology attained today cannot produce one. No effort to create an artificial cell has ever met with success. Indeed, all attempts to do so have been abandoned."

-Harun Yahua, Darwinsm Defeated 

“একটি কোষ এতই জটিল যে এমনকি উচ্চস্তরের প্রযুক্তির দ্বারাও -মানুষ আজ যা অর্জন করেছে - একটি মাত্র কোষও তৈরী করা যায় না। কৃত্রিম কোষ তৈরীর কোন প্রচেষ্টাই এপর্যন্ত সাফল্যের মুখ দেখেনি। বস্তুত, কোষ তৈরীর সমস্ত চেষ্টাই বিজ্ঞানীরা এখন ত্যাগ করেছেন।”


জীবজগতে কোষের বাইরে জীবনের অস্তিত্ব নেই। বিবর্তনবাদীদের ধারণা অনুসারে পৃথিবীতে প্রথম জীবনের স্ফুলিঙ্গ দেখা দিয়েছিল রাসায়নিক পদার্থের আপনা থেকে বিক্রিয়া ঘটতে ঘটতে হঠাৎ (By chance) একটি সরল আদিম ‘প্রােটোসেল’-এ, তারপর সরল ইউক্যারিওটিক কোষে। বিজ্ঞানীরা এজন্য অ্যামিবা, প্রােটোজোয়া বা ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র সরলতম এককোষী জীব ব্যাকটেরিয়াকেই সমস্ত জীবজগতের আদি পূর্বপুরুষ বলে নির্ধারণ করেছেন। আমরা, অতএব, এদেরই বংশধর। 


কিন্তু এইসব সরলকোষী ব্যাকটেরিয়া কি সত্যিই সরল’?


ডারউইন যখন বিবর্তনবাদ (Evolution) কথাটি প্রথমে তাঁর ‘দি ডিসেন্ট অব ম্যান ... দিঅরিজিন অব স্পিসিস’বইয়ের দ্বিতীয় পৃষ্ঠায় ব্যবহার করেন, সেটি প্রায় দুই শতাব্দী আগে। (১৮৫৯)। তখন অণুবীক্ষণ যন্ত্র খুব বেশি শক্তিশালী ছিল না;কোষকে তখন প্রােটোপ্লাজমের একটি থলিতে (blobs) ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র দু-একটি বিন্দু রূপে দেখা যেত, যেমন নিউক্লিয়াস, কিন্তু তার বেশি কিছু নয়। তখন ডারউইন ও তার অনুগামীরা সহজেই ভাবতে পেরেছিলেন যে ‘random chance" এর দ্বারা সহজেই উপযুক্ত পরিবেশে প্রাণহীন জড় উপাদান হতে সৃষ্টি হতে পারে প্রাণের । ১৯২০ সাল থেকে কোষের গঠন সম্বন্ধে জ্ঞান সঞ্চয় হচ্ছিল, সেই সংগে বিকাশলাভ করছিল ডারউইনীয় বিবর্তনবাদ। 


ওপারিন নামে একজন সােভিয়েত বিজ্ঞানী‘বায়ােকেমিক্যাল স্যুপ ’-এর চিত্র অঙ্কন করেন, যার থেকে জীবনের উদ্ভব ঘটেছে বলে তাঁর ধারণা ১৯৪০ সালে বায়ােকেমিস্ট্রি শাখায় গবেষণায় প্রমাণিত হল যে জৈব অণুগুলি (Biological molecules) যেমন ভাবা হয়েছিল তার চেয়ে অনেক অনেক বেশি জটিল। 


ফরাসী বিজ্ঞানী লোকাতে পর্যবেক্ষণ করে লেখেন যে আপনা থেকে দৈবক্রমে পৃথিবীর ইতিহাসে এমনকি একটি মাত্র প্রােটিন অণু তৈরীর সম্ভাবনাও ছিল ইম্পসিবল । 

তারপর বায়ােকেমিস্ট্রি শাখার অগ্রগতি, DNA-এর আবিষ্কার এবং কোষের জটিলতার উপর অব্যাহত গবেষণা এই তথ্যই তুলে আনল যে এমনকি একটি সরল’ কোষ ঘটনাচক্রে উদ্ভূত হওয়া অসম্ভব। ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপের আবিষ্কার আকস্মিকভাবে কোষ তৈরী হওয়ার তত্ত্বকে মধ্যযুগীয় বিশ্বাসের স্তরে নিয়ে গিয়েছে।


Click Here >>>Subscribe






Comments

y3

yX Media - Monetize your website traffic with us Monetize your website traffic with yX Media Monetize your website traffic with yX Media

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

sharethis-inline