Page

Follow

বিজ্ঞানের যুগে বিশ্বসভ্যতা ||অস্ত্রের বিবর্তন PAGE-17

 

 অস্ত্রের বিবর্তন 

PAGE-17


লিটল বয় থেকে ফ্যাট ম্যান। তারপর হাজার হাজার কিলােটন শক্তিসম্পন্ন হাইড্রোজেন বােমা, নিউট্রন বােমা, রাসায়নিক অস্ত্র,জীবাণু অস্ত্র। সাম্প্রতিকতম সংযােজন :  বিপুল ধ্বংসাত্মক ক্ষমতাসম্পন্ন অ্যান্টিম্যাটার বােমা এবং সেগুলি পৃথিবীর যেকোন মহাদেশে, যেকোন প্রান্তে নিক্ষেপের জন্য।  আই.সি.বি.এম ক্ষেপণাস্ত্র—ইন্টারকন্টিনেন্টাল ব্যালিস্টিক মিসাইল। শত শত ডিফেন্স ও স্পাই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ। মহাকাশে স্টার ওয়ার বানক্ষত্র যুদ্ধের প্রস্তুতি।

লেসার উইপস্ তৈরী। সুপারসনিক বম্বার প্লেন, রেডার-ডিটেকশান-প্রুফ স্টীলদ এয়ারক্রাফট। পরমাণু শক্তিচালিত ও পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্রবাহী শত শত সাবমেরিন মহাসাগরগুলির তলদেশে ঘুরছে। 


ভবিষ্যতের ইলেক্ট্রনিকওয়ারফেয়ারের জন্য প্রস্তুতি চলছে প্রতি দেশে। শুধু আমেরিকা ও রাশিয়া—দুই দেশের প্রত্যেকের কাছে রয়েছে ২৫ হাজার নিউক্লিয়ার ওয়ার-হেড সম্পন্ন আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র, যার একটিরও ধ্বংসশক্তি অভাবনীয়। 


বর্তমানে এসে গেছে স্মাট উইপনস্। আরাে অব্যর্থতা, আরও ধ্বংসক্ষমতা । আবিষ্কৃত হয়েছে অ্যান্টি প্রােটন বােমা, যা সাধারণ নিউক্লিয়র বােমার চেয়ে ১০০০ গুণ বেশি শক্তিশালী। 


বর্তমানে বিজ্ঞানীদের তৈরী স্মার্ট বম্ব প্রচলিত নিউক্লিয়ার বােমাকে শিশুদের খেলনায় পরিণত করেছে। মহাকাশও মানুষের অস্ত্র প্রতিযােগিতা থেকে মুক্ত নয়। নক্ষত্র যুদ্ধ কর্মসূচী হাতে নিয়েছে পৃথিবীর বিভিন্ন শক্তিধর দেশ। 


এমনকি, মহাকাশেও পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষিত হয়েছে;পরমাণু অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র মহাকাশ থেকে ছোড়ার ব্যবস্থাও সম্ভবতঃ তৈরী। বর্তমানে বিশ্বের মােট বিজ্ঞানীদের ২৫ শতাংশ নিয়ােজিত রয়েছেন সামরিক গবেষণায়, হত্যার অত্যাধুনিক ব্যবস্থা উদ্ভাবনে।।



সম্প্রতি মহাকাশে উপগ্রহ বিধ্বংসী অ্যান্টি-স্যাটেলাইট মিসাইল বা ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল চীন। শীঘ্রই ইউরােপ-আমেরিকা-এশিয়ার বিজ্ঞানীরা এই প্রতিযােগিতায় অংশ নেবে, যুদ্ধক্ষেত্র বিস্তৃত হবে মহাকাশ-অবধি। 


ধ্বংসক্ষেত্রের এই পরিধি ক্রমাগতই বাড়ছে, বাড়ছে ধ্বংস-ক্ষমতা।

কেন এত অস্ত্র? এমন ভাবা দুরাশা যে যারা পরস্পরকে অবিশ্বাস করে, ভয় করে এত অস্ত্র তৈরী করছে, তারা কোনদিন ভাববে না প্রয়ােগের কথা। অবশ্যই প্রয়ােগ হবে। হবে ধ্বংস আর বিপর্যয়।


 বারুদের স্তুপে আগুন জ্বালাতে একটি স্ফুলিঙ্গই যথেষ্ট; যে কোন একটি সন্ত্রাসবাদী হামলাও তৈরী করতে পারে যুদ্ধের পরিবেশ। গত কয়েক বছরের ইতিহাস তার সাক্ষী।




Click Here >>>Subscribe






Comments

y3

yX Media - Monetize your website traffic with us Monetize your website traffic with yX Media Monetize your website traffic with yX Media

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

sharethis-inline