জ্ঞাতা (Knower) ও জ্ঞেয় (Knowable object) কিভাবে এক বস্তু হতে পারে?Page-160

 

 জ্ঞাতা (Knower) ও জ্ঞেয় (Knowable object) কিভাবে এক বস্তু হতে পারে?



স্কুলের ল্যাবরেটরীতে শিক্ষক ছাত্র-ছাত্রীদের পদার্থ বােঝাচ্ছেন। কাচের জারে তিন রকমের পদার্থ রয়েছে কঠিন,তরল,গ্যাসীয় ছাত্রছাত্রীরা সনাক্ত করে লেবেল আঁটল। ঐ শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী পর্যবেক্ষক। জারের পদার্থগুলি তাদের পর্যবেক্ষণের বস্তু। 


ঐ শিক্ষক স্মরণ করতে পারেন,তার বিজ্ঞান শিক্ষকতাকে সুন্দরভাবে সব কিছু বুঝিয়েছিলেন, তিনি প্রয়াত হয়েছেন । প্রয়াণ অর্থ কোথাও থেকে বিদায়। তার পড়ে থাকা দেহটির সব পদার্থ সনাক্ত করে ঐ তিন শ্রেণীতে ফেলা যায়, তিনটি জারে রাখা যায়। একটি দেহের প্রায় ৮০% জলীয় বস্তু, বাকীটা কঠিন ও গ্যাসীয়। কিন্তু ঐ স্যার, যিনি ঐ পদার্থগুলি বােঝাচ্ছিলেন, সেই পদার্থের পর্যবেক্ষক নিজে কি ছিলেন --কঠিন, তরল, না গ্যাসীয় ?


 তার চেতন সত্তাটি অবশ্যই ছিল উচ্চতর, জড়ের থেকে ভিন্নতর কোন পদার্থ, যা জড় পদার্থ সম্বন্ধে সচেতন হতে পারে, জ্ঞান অর্জন করতে পারে। সেই বস্তুটি প্রয়াত’ হলে দেহটি আর পর্যবেক্ষক’ থাকেনা। চোখ থাকলেও সেটি দেখে না’, মস্তিষ্ক থাকলেও সেটি চিন্তা করে না, কান থাকলেও শােনে না। 



আগেও দেহটি জড় বস্তুই ছিল, চেতন সত্তা সেটিকে ব্যবহার করেছে মাত্র, ঠিক যেমন একজন গবেষক একটি মাইক্রোস্কোপ ব্যবহার করেন। বিশ্ব যদি কেবল জড় বস্তুর বৈচিত্র-বিস্তার হয়, তাহলে তার অর্থ-জড় বস্তু জড় বস্তুর নিরীক্ষক, গবেষক, পর্যবেক্ষক। কিন্তু সেটি কি কার্যতঃ সম্ভব? 


বস্তু জড়, কিন্তু জ্ঞাতাকে অবশ্যই হতে হবে উচ্চতর কোন বস্তু ও অবশ্যই চেতন। অচিৎ বস্তুর কখনাে জ্ঞানের তৃষা থাকে না, চেতন বস্তুই তার সচেতনতা (ovareness) বিস্তৃত করতে চায়। ভগবদ্গীতায় জড় বস্তুকে অপরা শক্তি (Inferior energy) এবং চেতন বস্তুকে পরা শক্তি (Superior energy) বলা হয়েছে।


 পরা শক্তি, চেতন বস্তু আত্মা চৈতন্যস্বরূপ, জ্ঞানময় (সৎ-চিৎ-আনন্দ), সেজন্যই সে জ্ঞাতা হতে পারে। অচেতন জড় বস্তুর কোন বিক্রিয়াজাত বস্তুসমন্বয় (matter-combination) জ্ঞাতা হতে পারেনা।


Click Here >>>Subscribe






Comments

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner