Page

Follow

প্রজাতিগুলির অন্তর্বর্তী যোগসূত্র (Intermediate Links) || Page-68

 

 প্রজাতিগুলির অন্তর্বর্তী যোগসূত্র (Intermediate Links)



 মিসিং, মিসিং! 


 বিবর্তন কোটি কোটি বছরের প্রক্রিয়া, এবং এটি এক অব্যাহত প্রক্রিয়া (Continuous process)। ফলে, এক জীব-প্রজাতি হতে অন্য জীব রূপান্তরের পর্যায়ে যে লক্ষ লক্ষ জীবদেহের (Transitional forms) উদ্ভব হয়, তার শিলীভূত নিদর্শন, জীবাশ্ম, ফসিল বা কংকাল ইত্যাদি অবশ্যই থাকবে। ডারউইন আশা প্রকাশ করেছিলেন যে ব্যাপক খনন কার্যের পর মিলবে প্রজাতিগুলির অন্তর্বর্তী লিংক। গত এক শতাব্দী ধরে সারা পৃথিবীতে ব্যাপক খনন কার্য চালিয়ে ১০ কোটি জীবাশ্মের ভান্ডার গড়ে তােলা হয়েছে, কিন্তু মেলেনি যােগসুত্র, বিজ্ঞানীরা যাকে বলেন ‘Missing Links।


মিসিং লিংকই বিবর্তনবাদীদের কল্পনা মূলক  তত্ত্বের অন্তঃসারশূন্যতা প্রমাণ করার জন্য যথেষ্ট। আমরা এ বিষয়ে যারা বিশেষজ্ঞ দিকপাল।


তাদের কথা শুনব ঃ । চালর্স ডারউইনঃ ।

"Why is not every geological formation and every stratum full of such intermediate links? Geology assuredly does not reveal any such finely graduated organic chain and this is the most obvious and serious objection which can be urged against the theory."So

“কেন প্রত্যেক ভূস্তরীয় গঠন এবং প্রত্যেক ভূস্তর এই রকম অন্তর্বর্তী যােগসূত্রে পূর্ণ নয়? ভূতত্তবিদ্যা নিশ্চিতভাবেই এইরকম সুন্দরভাবে ক্রমপর্যায়ে বিন্যস্ত কোন জৈব শৃঙ্খলের অস্তিত্ব প্রকাশ করছে না ; এবং এইটিই সবচেয়ে স্পষ্ট ও গুরুতর আপত্তি —এই তত্ত্বের বিরুদ্ধে যা উত্থাপন করা যেতে পারে।”

ডঃ কলিন প্যাটারসন, বিবর্তনবাদী, ব্রিটিশ মিউজিয়াম অব ন্যাচারাল হিস্ট্রির সিনিয়র প্যলেন্টোলজিস্ট (জীবাশ্মবিদ) ঃ “I fully agree with your comments about the lack of direct illustration of evolutionary transitions in my book. If I knew of any, fossil or living, I would certainly have included them ......... I will lay it on the line — there is not one such fossil for which one could make a watertight argument." 


“আমার বই [Evolution] সম্পর্কে আপনার মন্তব্যের সঙ্গে আমি সম্পূর্ণ একমত যে আমার বইয়ে বিবর্তনের ধারায় প্রজাতির রূপান্তরের প্রত্যক্ষ দৃষ্টান্তের অভাব রয়েছে। যদি আমি এমন কোন প্রমাণের কথা জানতাম – ফসিল হােক বা জীবাশ্ম হােক, আমি নিশ্চিতভাবেই আমার বইয়ে তা অন্তর্ভুক্ত করতাম ......... আমি একথা স্পষ্টভাবে বলব।

– এমনকি একটিমাত্রও এমন কোন ফসিল নেই, যা অকাট্যভাবে প্রজাতির রূপান্তরকে প্রতিষ্ঠিত করতে পারে।” 


প্রখ্যাত বিবর্তনবাদী বিজ্ঞানী ও মার্কসবাদীস্টিফেন জে. গোল্ড ::


“জীব-প্রজাতির দেহের ডিজাইনে মুখ্য রূপান্তরগুলির অন্তর্বর্তী ক্রমগুলির জীবাশ্ম প্রমাণের অনুপস্থিতি, এবং বাস্তবিকই,এমনকি আমাদের কল্পনাতেও বহু ক্ষেত্রে কোন কার্যকর অন্তর্বর্তী যােগসূত্র গঠনের প্রচেষ্টার বিফলতা বিবর্তনের ক্রম-পর্যায়মূলক বিবরণ দানের ক্ষেত্রে এক চিরস্থায়ী ও বিরক্তিকর সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।”


* মানুষ ও এপের মধ্যবর্তী যােগসূত্র বলে যে কিছু করােটি, দাঁত সংগ্রহ করেছেন বিজ্ঞানীরা, যেমন পিল্টডাউন ম্যান, জাভা ম্যান, পিকিং ম্যান ইত্যাদি সেই প্রমাণগুলির গুরুতর অসঙ্গতি, অসারতা ও অযৌক্তিকতা ফসিল-সংক্রান্ত অনুচ্ছেদে আলােচিত হবে।


 

Click Here >>>Subscribe






Comments

y3

yX Media - Monetize your website traffic with us Monetize your website traffic with yX Media Monetize your website traffic with yX Media

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

sharethis-inline