Adsterra 7

         

         

Follow

শ্রীকৃষ্ণের রূপ নিত্য ও অনন্ত | Page-191



  



শ্রীকৃষ্ণের  রূপ নিত্য ও অনন্ত   


চেতন বস্তুর যেমন ব্যক্তিত্ব আছে, তেমনি রূপও আছে। বদ্ধাবস্থায় জড় উপাদানে তৈরী নশ্বর দেহ জীবের ‘বিরূপ’ বা বিকৃত রূপ, যা সদা পরিবর্তনশীল, নশ্বর। কিন্তু প্রত্যেকের এক-একটি শাশ্বত রূপ বা স্বরূপ রয়েছে। তেমনি তাদের উৎস পরমচেতন পুরুষ ভগবানেরও রয়েছে নিত্য শাশ্বতরূপ, যা অ-জড়, সচ্চিদানন্দঘন।


 ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে বিশ্বরূপ প্রদর্শন করলে ভীতিবিহুল অর্জুন কৃতাঞ্জলিপুটে তাঁকে  প্রসন্ন চতুর্ভুজ বিষ্ণুরূপ প্রদর্শনের অনুরােধ করেন। শ্রীকৃষ্ণ শঙ্খ-চক্র-গদা-পদ্মধারী চতুর্ভুজ নারায়ণ-রূপ প্রদর্শন করেন, তারপর তিনি সৌম্যসুন্দর দ্বিভূজ মানুষরূপ, তার নিজস্ব রূপে প্রকটিত হন। অর্জুন বলেন, দৃষ্টেদং মানুষংরূপং তব সৌম্যং জনার্দন ‘তােমার সুন্দর সৌম্য মানুষাকৃতি রূপ দেখে আমি পরিতৃপ্ত হলাম। উত্তরে শ্রীকৃষ্ণ বলেন, অর্জুন তুমি আমার যে রূপ (দ্বিভুজ নরাকার) দেখছ তা অত্যন্ত দুর্লভ দর্শন। দেবতারাও এই নিত্য রূপের দর্শনাকাঙ্খী।।ভগবানকে সরাসরি অচিন্ত্য রূপ বিশিষ্ট বলা হয়েছে। জড় বুদ্ধি দ্বারা তাঁর রূপ অচিন্তনীয়, কিন্তু রূপ রয়েছে --অ-জড়, চিন্ময় রূপ। ভগবান একজন অপ্রাকৃত ইন্দ্রিয় সমন্বিত ব্যক্তি।


সুদুর্দর্শম  ইদং রূপং দৃষ্টবানসি যং মম।

দেবা অপি-অস্য রূপস্য নিত্যং দর্শনাকাঙ্খিণঃ।। 


‘রূপস্য নিত্যং’ —নিত্য রূপ (eternal form) এই উক্তি ‘তিনি রূপহীন’ —এই কল্পিত ধারণার বিরােধী শাশ্বত সত্য। দেবতারা কেন অস্থায়ী অনিত্য জড় রূপ দর্শনের আকাঙ্খ করবেন?


 ভগবদ্গীতা অনুসারে ব্রহ্মার আয়ু — ৪৩২ কোটি বছর X ২ X ৩৬৫ X ১০০ বছর হাজার হাজার কোটি বছর। তবুও তাঁর রূপ ‘নিত্য’নয়,নশ্বর। কিন্তু তারা শ্রীকৃষ্ণের ‘নিত্য’ রূপের দর্শনাকাঙ্খী। 


শ্রীকৃষ্ণ –শাশ্বত পুরুষ (eternal person), কিন্তু জড়রূপধারী নন—“দিব্য’, অর্থাৎ চিন্ময়, পবিত্র —পুরুষং শাশ্বত দিব্যং , তার রূপ নিত্য, শাশ্বত, পরম ।

ভগবান আনন্দচিন্ময়সদুজ্জ্বলবিগ্রহ ।

 ভগবানের জড় দেহ নেই, জড় ইন্দ্রিয় নেই, কিন্তু তার অর্থ এই নয় যে তিনি দেহহীন বা ইন্দ্রিয়শূন্য। তিনি জড় ইন্দ্রিয় বিবর্জিত, কিন্তু তার চিন্ময় সচ্চিদানন্দঘন শ্রীদেহ পূর্ণ ও অসীম শক্তিসম্পন্ন চিন্ময় ইন্দ্রিয় সমন্বিত। 


তার দেহের প্রতিটি ইন্দ্রিয় অপর সকল ইন্দ্রিয়ের ক্ষমতাসম্পন্ন অঙ্গানি যস্য সকলেন্দ্রিয়বৃত্তিমন্তি, এবং তিনি দেখতে পান - পশ্যন্তি। তিনি তার পরম ধাম গােলােকে অধিষ্ঠিত হলেও একই সাথে তিনি তার শক্তির মাধ্যমে সর্বব্যাপ্ত । ভগবদ্গীতায় শ্রীকৃষ্ণের উক্তিতেই স্পষ্ট,তিনি তার বিশেষ বিশ্বরূপ। দর্শনের জন্য অর্জুনকে প্রদান করেন বিশেষ চক্ষু। 




Subscribe For Latest Information






Comments

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

Ads Tera-5

         

         

         

Adsterra Social Bar

Popular Posts

adstera-6

         

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

EMAIL SUBSCRIPTION

Adstera 1