Adsterra 7

 

Follow

হরে কৃষ্ণ মন্ত্র ও ধ্যানের ফলে মনের উপর সুপ্রভাব ও বৈজ্ঞানিক রিসার্চের হলে উঠে আসা অত্যন্ত দুর্দান্ত সুফল।

 হরে কৃষ্ণ মন্ত্র ও ধ্যানের ফলে  মনের উপর সুপ্রভাব ও বৈজ্ঞানিক রিসার্চের হলে উঠে আসা অত্যন্ত  দুর্দান্ত সুফল। 



পৃথিবীর প্রখ্যাত নিউরাে সায়েনটিস্টদের একটি বড় মাপের কনভেনশন হলাে ২০০৫ – এ ওয়াশিংটন ডি.সিতে, যেখানে বিশ্বের নানা দেশ থেকে ৩৪ হাজার নিউরােসায়েনটিস্ট যােগদান করেন। সেখানে মনের উপর ধ্যান-জপের গভীর সদর্থক প্রভাবের সুনির্দিষ্ট প্রামাণিক রিসার্চের রিপাের্ট উপস্থাপন করেন। হাভার্ডের মতাে নামী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউরােসায়েন্টিস্টরা দি টেলিগ্রাফের বিজ্ঞান ক্রোড়পত্র নাে-হাউ’-এ ডিসেম্বর -৫, ২০০৫-এ ‘হেলথ’-পেজে পাওয়ার অব ওম' নামে একটি নিবন্ধে এই সব রিসার্চ-রিপাের্ট প্রকাশিত হয়। 


সাবটাইটেলে লেখা হয় “Brain researchers discover meditations myriad benefits. হাবার্ট বেনসন শরীরের ‘রিলাক্সশান রিস্পন্স’ নিয়ে ৪০ বছর গবেষণা করছেন তিনি বলেন যে মস্তিষ্কের সুস্থিতি আনায় ধ্যানের ফলপ্রসূতা আরাে বেশি করে সায়েন্টিফিক টার্মস-এর মাধ্যমে সুপরিস্ফুট হচ্ছে। তিনি বলেন, “এটি এখন এজন্য গুরুত্বপূর্ণ যে ডাক্তারের কাছে আসা রােগীদের ৬০ শতাংশই আসে মানসিক-চাপ সংক্রান্ত ক্ষেত্র থেকে।”


ঐ কনফারেন্সে ম্যাসাচুসেটস জেনারেল হসপিটালের গবেষকরা একটি রিসার্চ-পেপার উপস্থাপন করেন। তারা নিয়মিত ধ্যান করেন এমন ২০ জনের ব্রেন-স্ক্যান করেন। স্মৃতি, সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রভৃতি যে অঞ্চলে সংঘটিত হয়, মস্তিষ্কের সেই কর্টেক্সের চারটি অঞ্চলে স্ক্যান করা হয় তারা দেখেন যে-গ্রুপ ধ্যান করেনি, সেই ১৫ জনের চেয়ে ধ্যান করে এমন ১৫ জনের কর্টেক্সের চারটি অঞ্চল বেশি ঘনত্ববিশিষ্ট (“Were thicker)। 


দীর্ঘদিনের ব্যবধানে স্ক্যান করে দেখা যায় যে যারা ধ্যান করছে, তাদের মস্তিষ্কের ঐ অঞ্চলের ‘Aging বা  বয়ােবৃদ্ধির হারও অনেক শ্লথ। তাদের আচরণের উপর ধ্যানের প্রভাব নিয়ে তারা এখন রিসার্চ করছেন। এই রিসার্চ-স্টাডির মুখ্য লেখিকা (Lead author), হার্ভার্ডের সারা লাজাব জানান যে এই গবেষণালব্ধ তথ্য “Provide the first evidence that alterations in brain structure are associated with western-style meditation practice, possibly reflecting increased use of specific brain regions."


অপর-একটি হার্ভার্ড-এফিলিয়ে টিড রিসার্চ-ওয়ার্কে গবেষণাকরীরা রিপাের্ট করেন যে, মনের চাপ-মুক্তির বা ডিপ রিল্যাক্সেশান হলে নিঃশ্বাসে নাইট্রাস অক্সাইড গ্যাসের মাত্রা বেশি থাকে, যা ধমনীর রক্ত সঞ্চালন ক্ষমতা বাড়িয়ে রক্তচাপ কমায়। তাঁরা সুনিশ্চিত প্রমাণ পেয়েছেন যে ধ্যান এইভাবে স্ট্রেস মুক্তি ঘটিয়ে রক্তচাপ কমায়। এই কনফারেন্সে উপস্থাপিত ইউনিভার্সিটি অফ কেনটাকির নিউরােসায়েন্টিস্টদের একটি রিসার্চ-রিপাের্টে দেখা যায় যে তন্দ্রার চেয়ে ধ্যান অনেক বেশি ক্লান্তি, অবসাদ ও জড়তা দূর করতে সাহায্য করে। সারা পৃথিবীতে। এমনকি সরকারী কার্যালয়েও কর্ম-শিক্ষার্থীদের এজন্য যােগ-ধ্যান শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে।

Subscribe For Latest Information






Comments

This Blog is protected by DMCA.com

Subscribe

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

adstera-6

         

Email Subscription

Enter your email address:

Delivered by FeedBurner

EMAIL SUBSCRIPTION